চোখের নিচে কালি কমানোর প্রাকতিক উপায় আসুন জেনে নেই

চোখের নিচের কালি কমিয়ে ফেলুন সহজ প্রাকৃতিক উপায়ে ।



রাত জেগে কাজ করা, রাতে ভালো ঘুম না হওয়া, প্রবল মানসিক চাপের মতো নানা কারণে চোখের কোলে গাঢ় কালি পড়ে। অনেক সময় খাওয়াদাওয়ার অনিয়ম বা লাইফস্টাইলের কারণেও চোখের নিচে কালি বা ফোলাভাব দেখা দেয়। যাঁদের বেশি নুন খাওয়ার অভ্যেস তাঁদের শরীরে জল বেশি জমে এবং সে জন্যও চোখের কোল ফোলা দেখাতে পারে। সব মিলিয়ে মুখ বয়স্ক দেখায়। যেহেতু এই সমস্যাটা পুরোপুরি জীবনশৈলীর সঙ্গে যুক্ত, তাই একটু সচেতন হলে অনায়াসেই কমিয়ে ফেলতে পারেন আপনার চোখের নিচের কালি অথবা ফোলাভাব। তার সঙ্গে আরও কিছু টোটকা দিয়ে দিলাম আমরা। ক্লান্তি কাটিয়ে চোখ ফের তরতাজা করে তুলতে দারুণ কাজ করে এই সব টিপস।



শসার শীতলতা :



বহু যুগ ধরে চোখের ক্লান্তি কাটাতে শসা ব্যবহার করছেন মেয়েরা। শসায় অ্যান্টি অক্সিডান্ট ও ফ্ল্যাভেনয়েড রয়েছে যা চোখের লালচেভাব, জ্বালা ও ফোলাভাব কাটিয়ে উঠতে সাহায্য করে। পাতলা করে শসা কেটে দু’ চোখের উপরে বসিয়ে আধ ঘণ্টা রেখে দিন, চোখ তরতাজা হয়ে উঠবে।



কাঁচা আলু :



শসার বদলে আলু ব্যবহার করলেও একই ফল পাবেন। আলু অনেকটা সময় ধরে ঠান্ডাভাব ধরে রাখতে পারে, ফলে চোখ শীতল হওয়ার জন্য বেশি সময় পায়। তা ছাড়া আলুর মধ্যে একধরনের অ্যাস্ট্রিনজেন্ট থাকে, যা চোখের নিচের ফোলাভাব কমাতে পারে। আলুর স্লাইসের বদলে কাঁচা আলু কুরিয়ে গজ কাপড়ের আস্তরণের মধ্যে রেখেও চোখে চাপা দিতে পারেন।



দুধের গুণাগুণ :



এ ক্ষেত্রে মাঠাযুক্ত দুধই সাধারণত ব্যবহার করা হয়, তবে চাইলে সয়া দুধ ব্যবহার করা যেতে পারে। ঠান্ডা দুধে তুলো ডুবিয়ে চিপে নিন। তারপর চোখের উপরে চেপে বসিয়ে শুয়ে থাকুন। চোখের কোলের ফোলাভাব কমাতে এ দাওয়াই অব্যর্থ!



চমৎকারী চা :



চোখের কোলের কালি বা ফোলাভাব কমাতে দারুণ ভালো কাজ করে টি ব্যাগ। গ্রিন টি বা ব্ল্যাক টি-র ক্যাফিন চোখের নিচে পাতলা রক্তজালকগুলো সঙ্কুচিত করতে সাহায্য করে, পাশাপাশি রক্ত সংবহনও বাড়ায়। বড়ো কাপে গরম জল নিয়ে তাতে দুটো টি ব্যাগ কিছুক্ষণ ডুবিয়ে রাখুন। তারপর বের করে ঘরের তাপমাত্রায় ঠান্ডা হতে দিন। ঠান্ডা হয়ে গেলে দু’ চোখের উপর রেখে পনেরো মিনিট থেকে আধ ঘণ্টা পর্যন্ত শুয়ে থাকুন। সপ্তাহে এক কি দু’বার করলে চোখের নিচের ত্বক থাকবে টানটান, চোখও শীতল ও স্নিগ্ধ থাকবে।



ডিমের সাদা অংশ :



একটা ডিমের সাদা অংশটুকু বের করে নিন। আঙুল বা ব্রাশ দিয়ে চোখের নিচে পাতলা করে লাগান। মিনিট দশেক রাখুন। তারপর আলতোভাবে জল দিয়ে ধুয়ে নিন। এতে চোখের নিচে রক্ত সংবহন ভালো হবে, চোখের জ্বালাভাব কমবে, চোখের নিচের ত্বক টানটান ও সতেজ থাকবে

    Tags :

No Comment yet. Be the first :)

Related Posts