রুপচর্চায় গোলাপ জল

রুপচর্চায় গোলাপ জলের কোনো জুড়ি নেই।গোলাপ জলের উপকারিতাতার শেষ নেই।

আর গোলাপ জক অতি সহজেই আমরা হাতের নাগালে খুব সস্তায় পেয়ে যাই।সুধু আমাদের এর ব্যবহার জানা নেই।এবার আমরা জেনে নিবো গোলাপ জলের ব্যবহার 

সম্পর্কে। 



*****অ্যাকনে


এক টেবিল চামচ রোজ ওয়াটার, এক টেবিল চামচ লেবুর রস মিশিয়ে অ্যাকনের ওপর লাগিয়ে ৩০ মিনিট রাখুন। পরিষ্কার জলে মুখ ধুয়ে নিন। যে কোনও ভাল ফেস প্যাক গোলাপ জলে গুলে মুখে লাগালেও উপকার পাবেন।


*****ত্বকের কালো দাগ দূর করতে


আলু কুচি করে পেস্ট করে নিন। এরপর এর সাথে গোলাপ জল মেশান। এবার এটি মুখ এবং ঘাড়ে লাগিয়ে নিন। ১৫ মিনিট পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এই প্যাকটি ত্বকের কালো দাগ দূর করে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করতে সাহায্য করবে।



***** ত্বক পরিষ্কার করতে


কিছু পরিমাণে মেথি সারা রাত ভিজিয়ে রাখুন। পরের দিন সকালে পেস্ট করে নিন। মেথির পেস্টের সাথে গোলাপ জল মিশিয়ে প্যাক তৈরি করুন। ত্বকে এই প্যাকটি লাগিয়ে নিন। ২০ মিনিট পর ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। গোলাপ জলে অ্যান্টি ইনফ্লামেনটরী উপাদান রয়েছে যা ত্বক পরিষ্কার করে ব্রণ হবার প্রবণতা হ্রাস করে থাকে।



*****রুক্ষ চুল


গোলাপ জল ও গ্লিসারিন সম পরিমাণ মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণ তুলোর সাহায্যে মাথার তালুতে লাগিয়ে ১০ থেকে ১৫ মিনিট মাসাজ করুন। ৩০ মিনিট পর শ্যাম্পু করুন।



*****টোনার


বাজার থেকে কেনা দামি টোনারগুলোর পরিবর্তে গোলাপ জল ব্যবহার করতে পারেন। এটি ত্বকের অম্ল-ক্ষারের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে। আর অন্যান্য টোনারের মতো মুখ পরিষ্কারের পর গোলাপ জল মাখলে ত্বক থেকে ধুলাবালি ও বাড়তি তেল দূর হবে।



*****ময়েশ্চারাইজার


যেসব দিনগুলোতে আপনার ত্বক অত্যন্ত খসখসে অনুভূত হয় সেই দিনগুলোতে কাজে আসবে গোলাপ জল। ত্বকের সামান্য গোলাপ জল ছিটালেই পাবেন তরতাজা অনুভুতি।



*****মেইকআপ তুলতে


মেইকআপ রিমুভারের বিকল্প হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন গোলাপ জল। গোলাপ জলে কয়েক ফোঁটা নারিকেল মিশিয়ে নিন এবং ‘ক্লেনজিং প্যাড’য়ে লাগিয়ে মেইকআপ তুলে ফেলুন।



*****চোখের ফোলাভাব কমাতে


গোলাপ জল ফ্রিজে রেখে ঠাণ্ডা করে নিতে হবে। এবার এই ঠাণ্ডা গোলাপ জল দিয়ে তুলা ভিজিয়ে চোখের পাতার উপর কিছুক্ষণ বসিয়ে রাখতে হবে। এতে চোখে আসবে প্রশান্তির অনুভুতি, দূর হবে প্রাদাহ।

    Tags :

No Comment yet. Be the first :)

Related Posts